Monday, February 26, 2018

পাংশার মাছপাড়ায় বসত বাড়ী দখলের পায়তারা

পাংশার মাছপাড়ায় বসত বাড়ী দখলের পায়তারা 

মাসুদ রেজা শিশির 

 রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার মাছপাড়া ইউনিয়নের তত্তিপুর মৌজার রামকোল বাহাদুরপুর গ্রামের মোঃ কামাল হোসেন ও তার মায়ের নামের জমি দখলের পায়তারা করছে একটি মহল। গতকাল রবিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখাযায় ১৮ শতাংশ জমির মধ্যে ১২ শতাংশ জমির উপর দির্ঘ ২৫ বছর ধরে বাড়ী করে বসবাস করে চলছেন কামাল হোসেন ও তার পরিবার অপর ৫শতাংশ জমির উপর পুকুর ও রাস্তা রয়েছে। তিনি ওই জমি রেকডিও মালিক সেকেন মোল্লা,আক্কাস মোল্লা,হজরত মোল্লা,সাইফুল মোল্লা,বকাই মোল্লা, নিকট থেকে ক্রয় করে সেখানে বসবাস করে আসছেন। এর মধ্যে সেকেন মোল্লার নিকট থেকে ৫ শতাংশ  ৪০ পয়েন্ট  জমি কামাল হোসেন ক্রয় করে। বাকি ১২ শতাংশ ৬০ পয়েন্ট আক্কাস মোল্লা,হজরত মোল্লা,সাইফুল মোল্লা,বকাই মোল্লা কামাল হোসেন এর মা কালেকা খাতুন অরফে কতবানুর নামে রেজিঃ করে দিয়েছে। কামালসম্প্রতি ওই জমি কৌশলে দখলের পায়তারা করা হচ্ছে বলে কামাল হোসেন জানিয়েছেন। তিনি জানান বেশ কয়েকবার ওই জমির মিটিশন করার জন্য নানা ভাবে চেষ্ঠা করেছে কালাম হোসেন’র চাচা সেকেনদার আলী ও তার পরিবার এরই প্রেক্ষিতে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে।  পাংশা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রাশেদুর রহমানের নিকট কাগজপত্রাদি জমা দিলে তা পরার্যচলানা করে সেই আবেন বাতিল করে দেন তৎকারীন সহকারী কমিশনার ভুমি। পরবর্তীতে তৎকালীন কলিমহর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মোঃ জিয়াউর রহমান এর মাধ্যমে অর্থের বিনিময়ে তারা মিটিশন নিয়েছিল এসময় বিষয়টি জানাজানি হলে কামাল হোসেন চ্যালেঞ্জ করে পূনরায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) শেখ রাশেদ উজ্জানের নিকট আবেদন করেন এ সময় সহকারী কমিশনার (ভূমি) দির্ঘ সময় পর্যালচনা করে ওই আগের মিটিশন বাতিল করে দেয় এ নিয়ে বিভিন্ন সময় একে অপরের দোষারপ অব্যাহত রয়েছে। এদিকে কামাল হোসেন জানান তিনি যে মালিকের নিকট থেকে জমি ক্রয় করছে তিনি এখনও জীবিত রয়েছেন প্রয়োজনে তার নিকট থেকে বিষয়টি জানাযাবে। একই জমির অন্য দাবীদাররা বলছেন আমরা জমি নিয়েছি সাজেদার নিকট থেকে। এ ব্যাপারে ওই জমির দাবীদার শহিদুল মোল্লা অরফে বাকাই বলেন আমরা জমি কিনেছি সাজেদার নিকট থেকে তবে কামাল মিটিশন করার কথা বলে সেকেনদারের নিকট থেকে জমি নিয়েছে বলে তারা অভিযোগ করেন। 



শেয়ার করুন

0 facebook: