Thursday, March 15, 2018

আজ ওয়াহিদুল হক স্মারণিক মিলনোৎসব


আজ ওয়াহিদুল হক স্মারণিক মিলনোৎসব



জনস্রোত রিপোর্ট

আপনা মাঝে শক্তি ধরোনিজেরে করো জয়’ এ স্লোগানে নিয়ে দুই দিনব্যাপী কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরি শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তনে শুরু হচ্ছে ওয়াহিদুল হক স্মারণিক মিলনোৎসব-২০১৮ অদম্য প্রাণ-শক্তির এক মানুষ ওয়াহিদুল হক। রবীন্দ্র সঙ্গীত চর্চা এবং গবেষণা এদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে দিয়েছেন। জীবনভর কাজ করেছেন নিজেকে আড়ালে রেখে। ষাটের দশকে তৎকালীন পাকিস্তান সরকার বিজাতীয় সংস্কৃতি বলে যখন নিষিদ্ধ করেছিল রবীন্দ্রসঙ্গীত তখন বিক্ষুব্ধ বাঙালিকে পথে নামিয়ে ছিলেন ওয়াহিদুল হক  সাহিত্যের বাচিক চর্চা ও প্রসার প্রতিষ্ঠান কণ্ঠশীলন২০০৮ সালের মার্চ মাসে ওয়াহিদুল হকের জন্মদিনকে ঘিরে আয়োজন করে ওয়াহিদুল হক স্মারণিক মিলনোৎসবএরপর দুই বছর পরপর এই মিলনোৎসব করে আসছে কণ্ঠশীলন। তারই ধারাবাহিকতায় আগামী শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া এই উৎসবের আয়োজন করতে যাচ্ছে সাহিত্যে বাচনিক চর্চা প্রতিষ্ঠান 'কণ্ঠশীলন'

এ উপলক্ষে ১৪ মার্চ বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটির  আহবায়ক গোলাম সারোয়ার । উপস্থিত ছিলেন অধ্যক্ষ মীর বরকত, রইসুল ইসলাম,  প্রমূখ।
বক্তারা জানান, সাংবাদিক, লেখক ও কন্ঠশীলনের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ ওয়াহিদুল হক ১৯৩৩ সালের ১৬ মার্চ জন্ম গ্রহণ করেছিলেন। মৃত্যু পর্যন্ত তিনি কণ্ঠশীলন ভাবনাকে ধারণ করেছিলেন ।আমরা তাঁর সেই স্বপ্ন এবং কণ্ঠশীলন কর্মকানণ্ড বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কণ্ঠশীলন দীক্ষিত সকল সদস্যদের মাঝে এই পরিকল্পনা ছড়িয়ে দেয়ার ব্রত নিয়ে দুই দিনের এই অনুষ্ঠানমালার কার্যক্রম হাতে নিয়েছি। কণ্ঠশীলনে উত্তীর্ণ ১ম থেকে ৯০তম আবর্তনের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ ও তাঁদের ভাবনাসমূহ গ্রহণের মধ্য দিয়ে কণ্ঠশীলন ওয়াহিদুল হকের কর্মকাণ্ড বা¯তবায়নের রূপরেখা প্রয়াস পাবে বলে আমরা তাই আশা করি।
বক্তারা আরো জানান,এই আয়োজন কেবল অনুষ্ঠান নয়, কেবল পুনর্মিলন নয়, এই আয়োজন দেশের সকল সাংস্কৃতিক কর্মীর এক বৃহৎ উৎসবে পরিগণিত হবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।
আমরা অত্যন্ত আনন্দের সঙ্গে উল্লেখ করতে চাই যে, আগামী মাসে কণ্ঠশীলন তার ৩৪ বছর পূর্ণ করছে। এই আনন্দ আমরা দেশের সকল সংস্কৃতিমান মানুষের সঙ্গে ভাগ করে নিতে চাই।  কণ্ঠশীলন সভাপতি গোলাম সারোয়ার সভাপতিত্বে এই উৎসব অনুষ্ঠান আগামীকাল শুক্রবার সকাল ১০টায় উদ্বোধন করবেন সাংস্কৃতিক যোদ্ধা কামাল লোহানী । স্বাগত বক্তব্য রাখবেন কণ্ঠশীলন অধ্যক্ষ মীর বরকত । এসময় অতিথিবৃন্দের মধ্যে থাকবেন মঞ্চসারথি  আতাউর রহমান , নাট্যকার ,নাট্যজন মামুনুর রশীদ  , শব্দসৈনিক আশরাফুল আলম , কবি তারিক সুজাত ।                 






 এই উৎসব অনুষ্ঠানের মধ্যে থাকছে আবর্তন শিক্ষার্থীদের স্মৃতিচারণ, কথন পর্ব, আবৃত্তি , সমবেত সঙ্গীত, নৃত্য, কল্পরেখা শিশুদের পরিবেশনা, পুঁথি পাঠ ও জারিগান   । এছাড়া থাকছে কণ্ঠশীলনের ব্যাপক সাড়া জাগানো প্রযোজনা “ কঙ্ক ও লীলা এবং মহীয়সী রোকেয়া ।
একক আবৃত্তি করবেন রুপা চক্রবর্তী , বেলায়েত হোসেন , রেজিনা ওয়ালী লীনা , অলোক বসু , ইকবাল খোরশেদ , ফয়জুল ইসলাম পাপ্পু , কাজী মাহাতাব সুমন , আহসান উল্লাহ তমাল , মনিরুল ইসলাম , কায়সার রিজভি , নিরজ্জন অধিকারী , ভাস্বর বন্ধ্যোপাধ্যয় , ডালিয়া আহমেদ , রফিকুল ইসলাম , মাসকুর এ সাত্তার কল্লোল , খালেক মল্লিক , নায়লা তারানুম চৌধুরি কাকলি , তাম্মানা তিথি , মাসুম আজিজুল বাশার ও শরীফ মজুমদার ।  শনিবার রাত ৯ টা ১৫ মিনিটে  জাতীয় সংগীত এর মধ্য দিয়ে উৎসব সমাপ্তি ঘোষণা করা হবে বলে সংবাদ সম্মেললনে জানানো হয়। 


শেয়ার করুন

0 facebook: