Thursday, April 5, 2018

পার্বতীপুরের শিক্ষা অফিসার আহসান হাবীব জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নির্বাচিত

পার্বতীপুরের শিক্ষা অফিসার আহসান হাবীব জাতীয়
পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নির্বাচিত

এম এ আলম বাবলু

জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ - ২০১৭ এ জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষা অফিসার নির্বাচিত হয়েছে দিনাজপুরের পাবর্তীপুর  উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. আহসান হাবীব জাতীয় । বর্তমানে তিনি দিনাজপুরে সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার হিসেবে কর্মরত রয়েছে। গত ৬ মার্চ  ঢাকার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ -২০১৮ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ আহসান হাবীবকে জাতীয়  পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষা অফিসারের পদক, সনদ ও ২৫ হাজার টাকার চেক তুলে দেন ।
অনুষ্ঠানে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ আসিফ-উজ- জামান ও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি মো. মোতাহার হোসেন উপস্থিত ছিলেন।
 জানা যায়, আহসান হাবীব গত ২০০৫ সালের উপজেলা শিক্ষা অফিসার পদে চাকরিতে যোগদান করেন। পরবর্তীতে তিনি  উপজেলা শিক্ষা অফিসার হিসেবে অত্যন্ত নিষ্ঠা, সততার সাথে তাঁর দায়িত্বকর্তব্য পালন করেন।
সৈয়দপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের দায়িত্ব  পালনকালে স্ব-উদ্যোগে উপজেলার  সকল শিক্ষক-শিক্ষিকাদের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিষয়ক দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ই-প্রাইমারী এডুকেশন শীর্ষক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেন। পরবর্তীতে তিনি স্ব-উদ্যোগে উপজেলার ৭৮টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মিড- ডে -মিল চালু করেন। পরবর্তীতে পার্বতীপুর উপজেলা উপজেলা শিক্ষা অফিসার হিসেবে থাকাকালীন সেখানেও তিনি মিড-ডে- মিল চালু করেন। বর্তমানে তাঁর এ ধরণের  প্রশংসনীয় উদ্যোগটি  দেশব্যাপী বিস্তৃতি লাভ করেছে।  এছাড়াও তিনি শিক্ষকদের সহযোগিতায় নিয়ে পাবর্তীপুর উপজেলার ২০৫টি বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ  করতে সক্ষম হন। বর্তমানে  তিনি দিনাজপুরের সহকারি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের দায়িত্বে রয়েছেন। এডিপিইও পদে দিনাজপুর জেলায় অল্প কয়েকদিনের   মধ্যে এক হাজার ৮৬৯টি  সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মিড ডে মিল করতে উল্লেখ্যযোগ্য ভূমিকা রাখেন।  তাঁর  এসব ব্যতিক্রমধর্মী কাজে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী অ্যাড. মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার সর্বাত্মক সহায়তার হাত বাড়িয়ে উৎসাহ ও অনুপ্রেরণা যোগান বলে সংশ্লিষ্ট বিভাগ সূত্রে জানা গেছে। তাঁর এ ধরনের দুইটি উদ্যোগ দেশব্যাপী প্রাথমিক শিক্ষা ক্ষেত্রে বেশ আলোচিত ও অনুকরণী হয়েছে। মূলতঃ  প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সার্বিক পরিবেশ উন্নতকরণ,শতভাগ শিক্ষার্থী উপস্থিত, শিক্ষার গুনগতমানবৃদ্ধি ও মানসম্মত শিক্ষা বিস্তারে তাঁর ভূমিকা উল্লেখযোগ্য। 
 বর্তমানে তিনি প্রাথমিক শিক্ষার গুনগত মান উন্নয়নে স্ব-উদ্যোগে কমিউনিটি বেজড লানিং শীর্ষক একটি নতুন ধরনের কর্মসূচি নিয়ে কাজ শুরু করেছেন।  



শেয়ার করুন

0 facebook: