Monday, January 8, 2018

১২ই জানুয়ারি যাদুর লাটিম চট্টগ্রামে

১২ই জানুয়ারি  যাদুর লাটিম চট্টগ্রামে  

শারমিন ইসলাম

রাজধানী ঢাকায় সফল মঞ্চায়নের পর এবার চট্টগ্রাম যাচ্ছে কণ্ঠশীলন   আগামী ১২ই জানুয়ারি ২০১৮ শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় থিয়েটার ইনস্টিটিউট চট্টগ্রাম মিলনায়তন মঞ্চে চট্টগ্রামের দর্শক উপভোগ করতে পারবেন আরব্য রজনীর সাড়া জাগানো এ নাট্যাখ্যান।
নোবেল বিজয়ী মিশরীয় ঔপন্যাসিক নাগিব মাহফুজের “অ্যারাবিয়ান নাইটস অ্যান্ড ডে’জ” অবলম্বনে প্রযোজনাটির নাট্যরূপ দিয়েছেন রাফিক হারিরি এবং নির্দেশনা দিয়েছেন কণ্ঠশীলনের অধ্যক্ষ  মীর বরকত।  নির্দেশক মীর বরকত বলেন, ‘নাগিব মাহফুজের উপন্যাসের কিছু অংশ নিয়ে তরুণ লেখক রাফিক হারিরি ‘যাদুর লাটি ‘-এর নাট্যরূপ দিয়েছেন। মধ্যপ্রাচ্যের পটভূমিতে লেখা হলেও নাট্যকার বর্তমান সময়ের রাজনৈতিক, সামাজিক প্রেক্ষাপট, ব্যক্তিগত দ্বিধাদ্বন্দ্ব ফুটিয়ে তুলেছেন নাটকে। অদ্ভুতুড়ে কাহিনির সাথে বর্তমান বিশ্বের প্রবহমান ঘটনাবলীর সাযুজ্য ফুটিয়ে তুলতে ফ্যান্টাসি ও রিয়েলিস্টিকের মিশ্রণে ঢেলে সাজানো হয়েছে নাটকটি। এক ঝাঁক তরুণ নাট্যকর্মীর প্রয়াসটি সার্থক করতে সকল কলাকুশলী অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন।’

যাদুর লাটিম’ নাটকটি এক কল্পিত নগরের ইফরিদ-কুফরিদ নামের দুষ্টু জ্বীনের গল্প হলেও সমসাময়িক বিশ্বের বাস্তব অবস্থার বাইরে কিছু নয়। মানুষের শিরা-উপশিরায় ঘুরে বেড়ানো ইফরিদ আর কুফরিদ জনমনে কেবল সন্দেহ ও অবিশ্বাসের বিষ ঢোকায়। এছাড়া ধর্মের ভুল ব্যখ্যা দিয়ে নগরজুড়ে নৈরাজ্য সৃষ্টি করতে থাকে তারা। নগরের গভর্নর কালো জাদুমন্ত্র দিয়ে জ্বিন ইফরিদকে নিজের নিয়ন্ত্রণে রেখে নিজস্বার্থে ব্যবহার করে। একইসঙ্গে তার অনুগত পুলিশপ্রধানকে দিয়ে সমস্ত হীনকর্ম বাস্তবায়ন করে।
অন্যদিকে জ্বিন কুফরিদ তিন হাজার বছর বন্দি থাকে যাদুর পাত্রে। পুলিশপ্রধানের সহায়তায় কুফরিদ বন্দিদশা থেকে মুক্ত হয়ে দেখে তার দুষ্টু বন্ধু ইফরিদ গভর্নরের হাতে বন্দি। গভর্নরের হাত থেকে তার মুক্ত হবার একমাত্র উপায় হচ্ছে গভর্নরের অপঘাতে মৃত্যু। শুরু হয় দুই জ্বিনের চক্রান্ত। সেই চক্রান্তের বলি হয় ব্যবসায়ী সানান, কোটিপতি কারাম, হামদানি, সালিম এবং এক তরুণী।  গভর্নর ও পুলিশপ্রধানের দ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করে। এদিকে ইফরিদ কালো জাদু থেকে মুক্ত হয়ে কুফরিদকে নিয়ে আরও বেপরোয়াভাবে নগরে  অনাসৃষ্টি করতে থাকে। এদিকে পুলিশপ্রধানও কালো যাদু থেকে মুক্ত হতে না পেরে অন্যায়ের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করে। তবু শেষ রক্ষা হয় না। ইফরিদ-কুফরিদরা বহাল তবিয়তে থেকে যায় সমাজে, রাষ্ট্রে, পৃথিবীতে। কখনো কখনো দুষ্টু গভর্নরের হাতের পুতুল হয়ে অদৃশ্য সব অপকর্ম ও অনাসৃষ্টি করে বেড়ায় কালো পোশাকে রাতের অন্ধকারে। তারা থেকে যায় সবসময়ই ধরা ছোঁয়ার বাইরে।

প্রায় দেড় ঘন্টার নাটকটির মঞ্চসজ্জা, পোশাক ও আলোক পরিকল্পনায় আছেন ফয়েজ জহির, সঙ্গীত পরিকল্পনা ও সুর সংযোজন করেছেন শিশির রহমান, কোরিওগ্রাফি করেছেন আমিনুল আশরাফ। গান লিখেছেন রাফিক হারিরি ও মীর বরকত। নাটকে বিভিন্ন চরিত্র রূপদান করেছেন রইস উল ইসলাম, মোস্তফা কামাল, একেএম শহীদুল্লাহ কায়সার, সোহেল রানা, সালাম খোকন, অনন্যা গোস্বামী, জেএম মারুফ সিদ্দিকী, নিবিড় রহমান, আফরিন খান, অনুপমা আলম, রাহনুমা ইসলাম রাখী, মো. আব্দুল কাইয়ুম, লায়লা নজরুল, রুবেল মজুমদার, নিশরাত জেবিন নিশি, শেখ সাজ্জাদুর রহমান, ফাহিম আবরার, আনিকা মৌনি ও তাসিন ইসলাম।


শেয়ার করুন

0 facebook: